প্রধানমন্ত্রী মোদি একটি নতুন পরিকল্পনা করেছেন: এখন লাক্ষাদ্বীপে একটি নতুন বিমানবন্দর তৈরি করা হবে, মালদ্বীপ বন্ধ হয়ে যাবে

Prakash Gupta
2 Min Read

ভারত ও মালদ্বীপের মধ্যে চলমান বিবাদে কেন্দ্রীয় সরকার ব্যবস্থা নিচ্ছে। এখন ভারতের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল লাক্ষাদ্বীপকে মালদ্বীপের বিকল্প হিসেবে গড়ে তোলার প্রস্তুতি চলছে। টার্গেট ডিপেতে একটি নতুন বিমানবন্দর নির্মাণের পরিকল্পনা করছে। লাক্ষাদ্বীপের মিনিকয় দ্বীপে তৈরি হবে এই নতুন বিমানবন্দর। বিমানবন্দরের সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হল এখান থেকে শুধু নাগরিকই নয়, বিমানও চলাচল করতে পারে। চলুন জেনে নেওয়া যাক সে সম্পর্কে।

“পরিকল্পনার অংশ হিসাবে, এখানে একটি যৌথ বিমানঘাঁটি তৈরি করা হচ্ছে যা যুদ্ধবিমান, সামরিক পরিবহন এবং বাণিজ্যিক বিমান পরিচালনা করতে সক্ষম হবে,” সংবাদ সংস্থা এএনআই সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে বলেছে। সূত্র আরও জানায়, ইতিমধ্যে মিনিকয় দ্বীপে একটি নতুন বিমানঘাঁটি নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে নতুন পরিকল্পনায় প্রথমবারের মতো প্রতিরক্ষা ও বেসামরিক উভয় উদ্দেশ্যে যৌথ আকাশসীমা তৈরির প্রস্তাব করা হয়েছে।

বিমানবন্দরের দুটি সুবিধা হবে

সরকারী সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র লাক্ষাদ্বীপে পর্যটনকে বাড়ানোর লক্ষ্যেই নয়, এখান থেকে আরব সাগর এবং ভারত মহাসাগর অঞ্চলে তার নজরদারি ক্ষমতা জোরদার করার জন্যও। নতুন এয়ারফিল্ডের মাধ্যমে ভারত একটি তীরে দুটি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করার সুযোগ পেতে চলেছে। লাক্ষাদ্বীপের মিনিকয় দ্বীপে একটি নতুন বিমানঘাঁটি নির্মাণের প্রথম প্রস্তাব ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী দিয়েছিল।

বর্তমান প্রস্তাবটি ইঙ্গিত দেয় যে ভারতীয় বিমান বাহিনী এয়ারফিল্ড থেকে কাজ করতে চায়। একবার চালু হলে, বিমানবন্দরটি প্রতিরক্ষা বাহিনীর নজরদারি ক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি স্থানীয় পর্যটন শিল্পের আয় বৃদ্ধি করবে। সরকার ইতিমধ্যেই লাক্ষাদ্বীপে পর্যটন বাড়ানোর পরিকল্পনা তৈরি করেছে। বর্তমানে, লাক্ষাদ্বীপের আগাট্টিতে একটি মাত্র এয়ারস্ট্রিপ রয়েছে, যেখানে অনেক ধরনের বিমান অবতরণ করতে পারে না।

মেট্রোতে টয়লেট নেই কেন? কারণটা খুবই আশ্চর্যজনক
READ
Share This Article