শিক্ষক হিসেবে আমার পুরনো প্রেমের কথা মনে করিয়ে দিল। স্বামীর কাছ থেকে ডিভোর্স নিতে এসএসবি জওয়ান, জেনে নিন বিপিএসসির সঙ্গে ম্যাডামের গল্প

Prakash Gupta
2 Min Read

আজ নারীর ক্ষমতায়ন বাড়ছে। মানুষ চায় তাদের পুত্রবধূরা লেখাপড়া করুক এবং অনেক লেখালেখি করুক এবং এগিয়ে যাক। কিন্তু আজ আমরা আপনাদের এমন একটি গল্প শোনাতে চলেছি যা পড়লে লোকেরা তাদের পুত্রবধূদের পড়তে এবং লিখতে সক্ষম করতে ভয় পাবে। ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের মুজাফফরপুরে।

এখানে একজন এসএসবি জওয়ান তার স্ত্রীকে অনেক পাঠ লিখেছিলেন। যুবক তার স্ত্রীকে শিক্ষা দিতে বাদ যাননি। বইয়ের কপি থেকে শুরু করে কোচিং ফি সবই তিনি সম্পন্ন করেন। তার স্ত্রীও সফল।

তিনি বিপিএসসি শিক্ষক পরীক্ষায় নির্বাচিত হন। তিনি মুজাফফরপুরের সাহেবগঞ্জে পোস্টড ছিলেন। মেয়ের সাফল্যে বাবা-মা ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন দুজনেই খুব খুশি। কিন্তু তখনই নারী শিক্ষিকার প্রতি বছরের পুরনো ভালোবাসা জেগে ওঠে। এখন সে তার স্বামীকে তালাক দিতে চায়।

পুরো ঘটনা কি?

শিক্ষিকা হওয়ার পর মেয়েটির মনে পড়ে গেল তার পুরনো প্রেম। বিপিএসসি কর্তৃক নির্বাচিত শিক্ষক অনেক দিন ধরে বিদ্যালয়ে আসছিলেন না। শিক্ষক মা এফআইআর দায়ের করেছেন। শিক্ষকের আকস্মিক নিখোঁজ হওয়ায় সবাই চিন্তিত। মামলার সুরাহা করতে পারেনি পুলিশ। বিষয়টি তুঙ্গে উঠলে শিক্ষক বিদ্যালয়ে পৌঁছান। আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে ওই শিক্ষিকা জানান, তিনি তার বন্ধুর বাড়িতে গিয়েছিলেন।

সে তার স্বামীকে তালাক দিতে চায়

শিক্ষকের আকস্মিক নিখোঁজ হওয়াতে বিরক্ত, তার মা তাকে অপহরণ করার জন্য তার আত্মীয় চাচাকে অভিযুক্ত করে এফআইআর দায়ের করেছিলেন। এ মামলায় তাকে আদালতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সবাই হতবাক। জোর করে বিয়ে করানো হয়েছে বলে জানান ওই শিক্ষক। সে তার স্বামীর কাছ থেকে ডিভোর্স চায়। তিনি আদালতে বিবাহবিচ্ছেদের মামলা করবেন। স্কুল শিক্ষক তার সম্পর্কের চাচার সাথে বসবাসের কথাও বলেছেন।

এই বিবৃতি দিয়েছেন তার স্বামী

এদিকে স্কুল শিক্ষকের স্বামী জানান, স্ত্রীর লেখাপড়ায় তিনি কোনো কসরত রাখেননি। তিনি বারাণসীতে থাকেন। সেখানে স্বামীর সঙ্গে থাকতেন ওই শিক্ষিকা। সেখানে পড়াশোনা চালিয়ে যান। কিন্তু শিক্ষিকা নির্বাচিত হওয়ার পর স্বামীর থেকে দূরে সরে যেতে থাকেন তিনি।

মণীশ কাশ্যপ নিউজ: সাংবাদিক ও ইউটিউবার মনীশ কাশ্যপ জেল থেকে মুক্তি পেয়েছেন। প্রায় 9 মাস ধরে জেলে থাকা মণীশ কাশ্যপের ভক্তরা তাঁর বেরিয়ে আসার অপেক্ষায় ছিলেন।
READ
Share This Article