জেনেরিক ওষুধ কি? ব্র্যান্ডেড ওষুধের এত দাম কেন?

Prakash Gupta
2 Min Read

জেনেরিক ওষুধ: বর্তমান সময়ে একজন মানুষ যদি কোনো কঠিন রোগে আক্রান্ত হয় তাহলে তার চিকিৎসার জন্য অনেক খরচ হয়। “আজকাল চিকিৎসা খুবই ব্যয়বহুল। এ ছাড়া দামি ওষুধের কারণে মানুষ অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ছে। মানুষের আয়ের একটা বড় অংশ যায় ওষুধ কিনতে। জনগণের এই সমস্যার পরিপ্রেক্ষিতে ভারত সরকার জেনেরিক ওষুধ কেনার ওপর জোর দিচ্ছে।

জেনেরিক ওষুধ অন্যান্য ওষুধের তুলনায় অনেক সস্তা। সাধ্যের মধ্যে হওয়ায় মানুষ এগুলো কিনতে গিয়ে আর্থিকভাবে ভোগান্তিতে পড়তে হয় না। সেজন্য জেনেরিক ওষুধ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করা হচ্ছে যাতে তাদের খরচ কমানো যায়। আজ এই নিবন্ধে, আমরা আপনাকে জেনেরিক ওষুধগুলি কী এবং কেন সেগুলি ব্র্যান্ডেড ওষুধের চেয়ে সস্তা তা জানাতে যাচ্ছি।

জেনেরিক ড্রাগ কি?

জেনেরিক ওষুধগুলি হল যেগুলির কোনও ব্র্যান্ডের নাম নেই। এসব ওষুধ লবণ নামে পরিচিত ও বিক্রি হয়। এরকম অনেক কোম্পানি আছে যারা জেনেরিক ওষুধ তৈরি করে এবং তারা দেশে নিজেদের জন্য একটি নাম তৈরি করেছে।

এর পরেও ওই সব কোম্পানির জেনেরিক ওষুধ বিক্রি হচ্ছে অনেক কম। ভারত সরকার প্রধানমন্ত্রী জন ঔষধি যোজনার অধীনে দেশে জেনেরিক ওষুধের দোকান খুলছে। জেনেরিক ওষুধগুলি ব্র্যান্ডেড ওষুধের মতোই কার্যকর।

জেনেরিক ওষুধের দাম কম কেন?

এই ওষুধগুলি ব্যয়বহুল হওয়ার কয়েকটি কারণ রয়েছে। এসব ওষুধের ক্রয়ক্ষমতার পেছনে সবচেয়ে বড় কারণ হলো কোম্পানিকে তাদের গবেষণা ও উন্নয়নে কোনো ধরনের খরচ করতে হয় না। গবেষণা ও উন্নয়নে প্রচুর অর্থ ব্যয় করা হয়। তাই এর গবেষণা ও উন্নয়ন ইতিমধ্যেই হয়েছে।

এছাড়াও, জেনেরিক ওষুধের কোন প্রচার নেই। এবং তাদের প্যাক করতে অনেক টাকা খরচ হয় না। এই ওষুধগুলি বড় আকারে উত্পাদিত হয়। একই সঙ্গে উৎপাদন বেশি হওয়ায় দামও অনেক কম।

আজকের সোনার দাম: 2024 সালে প্রথমবারের মতো সোনা ও রূপা এত সস্তা, সর্বশেষ রেট জেনে নিন...
READ
Share This Article